শাস্তি হতে পারে মেসির! ChannelCox.com

Najim UddinNajim Uddin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:৫৫ PM, ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০

চ্যানেল কক্স ডটকম ডেস্ক:

বার্সেলোনার মেডিকেল টেস্টে অংশ নিলেনই না লিওনেল মেসি। সোমবার থেকেই দল নিয়ে নতুন মরশুমের প্রস্তুতিতে নেমে পড়ার কথা কোচ রোনাল্ড কোম্যানের। তার আগে রোববার ক্লাবের সব ফুটবলারদের মেডিকেল টেস্ট হলো। যেখানে প্রথম সারির ৩১ জন ফুটবলার হাজির থাকলেও অধিনায়ক মেসির দেখা মিলল না।

এ বছর নতুন মরশুম শুরুর আগে প্রত্যেক ফুটবলারের কোভিড টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কিন্তু তা থেকে সরে দাঁড়ানোয় সোমবার অনুশীলনে অংশ নিতে পারবেন না মেসি। যার জেরে বড়সড় শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে আর্জেন্টিনার মহাতারকাকে। সূত্রের খবর, ক্লাবের অনুশীলন সংক্রান্ত শৃঙ্খলাভঙ্গের দণ্ড স্বরূপ তাকে ২ থেকে ১০ দিনের জন্য বহিষ্কার করা হতে পারে। এমনকী তার মাসিক বেতনের ৭ শতাংশ জরিমানা ধার্য হওয়ার আশঙ্কাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। এরপর মঙ্গলবারের অনুশীলনেও যদি মেসি যোগ না দেন, তাহলে ১০ থেকে ৩০ দিনের জন্য সাসপেন্ড হতে পারেন তিনি। সেক্ষেত্রে কেটে নেয়া হতে পারে ২৫ শতাংশ বেতন। যদিও মেসির পক্ষ থেকে আগেই ক্লাব কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল যে, তিনি মেডিকেল টেস্টে অংশ গ্রহণ করবেন না। ফলে তার অনুপস্থিতি নিয়ে ক্লাব কী সিদ্ধান্ত নেয়, সেটাই এখন দেখার।

এদিকে, শনিবারই বার্সেলোনার পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, চুক্তির বাই আউট ক্লজ অনুযায়ী ৭০০ মিলিয়ন ইউরো দিয়েই ক্লাব ছাড়তে হবে মেসিকে। তবে রোববার বেশ কয়েকটি স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম দাবি করে, মেসির চুক্তিপত্রে শেষ মরশুমে কোনো রকম বাই আউট ক্লজের কথা উল্লেখ নেই। তাদের দাবি, ২০১৭ সালে মেসি শেষবার বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি নবীকরণ করেছিলেন। যেখানে তিন বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন তিনি। পাশাপাশি এক বছরের ঐচ্ছিক চুক্তি হয়। যেখানে তিনি চাইলে শেষ বছর নাও বার্সার হয়ে খেলতে পারেন। এই মর্মেই মেসির আইনজীবী এখন বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তিভঙ্গ সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছেন।

বার্সেলোনার বোর্ড সদস্যরাও মেসিকে নিয়ে কিছুটা নমনীয় মনোভাব দেখাতে শুরু করেছেন। শোনা গিয়েছে, এই বিষয়টি নিয়ে আর বেশি পানিঘোলা করতে চাইছেন না তারা। আর্জেন্টাইন মহাতারকা যেহেতু দল ছাড়ার ব্যাপারে মনস্থির করে ফেলেছেন, তাই দু’পক্ষের মধ্যে সুষ্ঠ আলোচনার মধ্যে দিয়েই কোনো একটা সমাধানসূত্র বের করার চেষ্টা হতে পারে। যদিও ক্লাবের পক্ষ থেকে সরকারিভাবে এখনো এ বিষয়ে কোনো রকম বিবৃতি দেয়া হয়নি।

Channel Cox News.

আপনার মতামত লিখুন :