• শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন

কাউন্সিলর জিয়াবুলেৱ শারদীয় দূর্গোৎসবের শুভেচ্ছাসহ পূজা মন্ডপে নগদ অর্থ প্রদান | ChannelCox.com

সংবাদদাতা
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০

মো: নাজমুল সাঈদ সোহেল,চকরিয়া:

আবহমানকাল ধরে এ দেশের হিন্দু সম্প্রদায় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও উৎসবমুখর পরিবেশে নানা উপচার ও অনুষ্ঠানাদির মাধ্যমে দুর্গাপূজা পালন করে আসছে। এ উৎসব সর্বজনীন। দেবী দুর্গার আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। বোধন দুর্গাপূজার অন্যতম আচার। বোধন শব্দের অর্থ জাগরণ বা চৈতন্যপ্রাপ্ত।

পুরাণ অনুসারে, রাক্ষসরাজ রাবণকে বধের উদ্দেশ্যে ভগবান রামচন্দ্র শরৎকালে দুর্গাপূজা করেন। অকালে দেবীকে তিনি বোধন করেন বলে একে অকালবোধনও বলা হয়। এবার স্বর্গের কৈলাস থেকে দেবী দুর্গার আগমন দোলায় চেপে এবং আগামী সোমবার বিজয়া দশমীতে বিদায় নেবেন গজে (হাতি) চড়ে। যার অর্থ মর্ত্যলোক ভরে ওঠে সুখ-শান্তি-সমৃদ্ধিতে। পূর্ণ হবে ভক্তদের মনোবাঞ্ছা। পরিশ্রমের সুফল পাবে পৃথিবীর মানুষ। শস্য শ্যামলায় পরিপূর্ণ হবে বসুন্ধরা।

তবে এবার দেবীর আগমন দোলায় (পালকি) চড়ে। দোলা বা পালকিতে সূচিত হয় ভয়ঙ্কর মহামারী। যাতে বিপুল প্রাণহানি অনিবার্য।

হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে চকরিয়া পৌৱসভাসহ দেশ-বিদেশের সকল হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মানবদরদী জনপ্রতিনিধি ও তারুণ্যের অহংকার আগামীর পৌর হর হহর কান্ডারী কাউন্সিলর জিয়াবুল হক।

চকরিয়ার আগামীর পৌর কান্ডারী নিঃস্বার্থ সমাজসেবক ও জনদরদী, চকরিয়া পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিয়াবুল হক হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে চকরিয়া ভরামুহুরী কেন্দ্রীয় কালীমন্দিরসহ বিভিন্ন পূজা মন্ডপে নগদ অর্থ প্রদান কৱেন।

আগামীর পৌর কান্ডারী কাউন্সিলর জিয়াবুল বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে চকরিয়া-পৌরসভাৱ সকল হিন্দু সম্প্রদায়ের সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ‘বাঙালি হিন্দুদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। সমাজে অন্যায়, অবিচার, অশুভ ও অসুরশক্তি দমনের মাধ্যমে শান্তিপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এ পূজা হয়ে থাকে। দূর্গা পূজা সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অনুষ্টান হলেও অন্য সম্প্রদায়ের লোকজনও এই উৎসবে সামিল হন। দেশের অন্যান্য জায়গার তুলনায় চকরিয়া একটি সম্প্রতির এলাকা। এখানে সব ধর্মের মানুষ বিভিন্ন পূজা-পর্বন ঈদসহ নানা আয়োজন মিলেমিশে উদযাপন করি। এবারের দূর্গা পূজাও যাতে ঝাঁকজমক পূর্ণভাবে অনুষ্টিত হয় সেজন্য সবাইকে আন্তরিক সহযোগিতার আহ্বান জানাচ্ছি। যেহেতু এবছর করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে আরোপকৃত বিধিনিষেধ মেনে চলাৱ অনুরোধ জ্ঞাপন করছি। আশাকরি এবারের দুর্গা পূজাও আড়ম্বরপূর্ণভাবে অনুষ্টিত হবে।

তিনি আৱো বলেন, বর্তমান সময়ে সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসের এই মহামারিতে পরিবার-পরিজন নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারদীয় দুর্গাপূজার আনন্দ উপভোগ করার আহ্বান জানান তিনি। হিন্দুদের সবচেয়ে বড় এ ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক শুভেচ্ছা বার্তা এই আহ্বান জানান কাউন্সিলর জিয়াবুল।

উল্লেখ্য, চকরিয়া উপজেলায় এবার ৪৬টি মণ্ডপে প্রতিমা পূজা এবং ৪২টি মন্ডপে ঘট পূজা অনুষ্টিত হবে। এর মধ্যে চকরিয়া পৌরসভায় ৭টি, উপজেলার ফাঁসিয়াখালীতে ৭টি, কাকারায় ২টি, বরইতলীতে ৬টি, হারবাংয়ে ৮টি, সাহারবিলে ২টি, ডুলাহাজারায় ৭টি, খুটাখালীতে ১টি, চিরিংগা ইউপিতে ১টি, কৈয়ারবিলে ৩টি ও পূর্ব বড় ভেওলায় ২টি মন্ডপে প্রতিমা পূঁজা অনুষ্টিত হবে।

Channel Cox News.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + fourteen =

আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ