ঈদগাঁওতে অনৈতিক কাজে বাঁধা দেওয়ায় হাত কেটে দিলো যুবকের,ঘাতক আটক

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:৪২ AM, ২৯ জুলাই ২০১৯

বিশেষ প্রতিবেদক : ক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও ইউনিয়নে অনৈতিক কাজে বাঁধা দেয়ায় যুবকের হাত কেটে নিল এলাকার এক চিহ্নিত লম্পট। আহত যুবককে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ২৮ জুলাই রাত আনুমানিক আড়াই টার দিকে এ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটে বর্ণিত ইউনিয়নের ৯ নাম্বার ওয়ার্ড পূর্ব ভোমরিয়া ঘোনা এলাকায়। ঘাতক লম্পটকে জনতার সহযোগিতায় আটক করেছে পুলিশ। আহত যুবক একই এলাকার হাজী জাফর আলমের ছেলে দিদারুল ইসলাম (২৮) বলে জানা যায়। ঘাতক কামাল হোসেন (২৫) একই এলাকার আমির সুলতানের ছেলে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। আহত যুবকের পরিবার ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আটককৃত যুবক কামাল হোসেন জনৈক এক নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করে। এমন কি ঐ নারীর বসত ঘরে রাতের বেলায় প্রায় সময় কামাল কে দেখত প্রতিবেশীরা। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার তাকে ধৃত করছিল প্রতিবেশী দিদারুল ইসলামসহ এলাকার লোকজন। এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় ভাবে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে বৈঠকেও বসা হয় সর্দার মেম্বারের উপস্থিততে । সে বৈঠকে আটককৃত কামাল হোসেন ঐ বাড়িতে আর যাবে না মর্মে অঙ্গিকারনামা প্রদান করে। অঙ্গিকারনামা দেওয়ার পরও গতরাতে ঐ বাড়িতে যায় লম্পট কামাল। বাড়ির পাশাপাশি দিদারুল ইসলামের নজর আসলে চোর মনে করে এগিয়ে গেলে ঐ লম্পট সাথে নিয়ে যাওয়া দা’ দিয়ে সজোরে মাথা লক্ষ করে কোপ দেয়। এ সময় হাতে ধরে পেলার চেষ্টা করলে হাত কেটে যায় বলে জানান স্থানীয়রা।
এ সময় তার শোর চিৎকারে অপরাপর লোকজন এগিয়ে আসলে ঘাতক লম্পট কামাল হোসেন পালিয়ে যায়। দিদারকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানেও অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ঘটনার ১১ ঘন্টা পর তার নিজ বাড়ীর পিছনে এক নিকট আত্বীয়ের বাড়িতে আত্মগোপন করে। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ফোন করে অবহিত করেন। পরে ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামানের নির্দেশে এএসআই মহি উদ্দীনসহ সঙ্গীয় একদল ফোর্স পৌঁছে কামালকে আটক করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসে। স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আবদুল হাকিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কক্সবাজার মেইলকে বলেন, আহত দিদারকে নিয়ে হাসপাতালে রয়েছি। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন চিকিৎসক। ঈদগাাঁও পুুুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে ঘাতককে আটক করা হয়েছে। একমাত্র আসামী হিসেবে তাকে শনাক্ত করেছে এলাকার লোকজন। আহত যুবক চিকিৎসাধীন রয়েছে। পরিবারকে মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে

আপনার মতামত লিখুন :