চাকমারকুল মাদ্রাসায় অভিভাবক সম্মেলন ও কৃতি শিক্ষার্থীদের পুরস্কার বিতরণ

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:৩৭ PM, ০৬ অগাস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রামু আল-জামেয়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলুম চাকমারকুল মাদ্রাসার অভিভাবক সম্মেলন ও কৃতি শিক্ষার্থীদের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) সকালে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুহতামিম (প্রধান পরিচালক) আলহাজ্ব মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিকদার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চাকমারকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার।
বক্তব্য রাখেন- মুহাদ্দিস মাওলানা ফিরোজ আহমদ, শিক্ষা পরিচালক মাওলানা মুফতি কামাল হোসাইন, মাওলানা ইয়াকুব, মুফতি হাবিব উল্লাহ, মাওলানা সুলাইমান, মাওলানা হারুন আরশাদ, ছাত্রাবাস তত্ত্বাবধায়ক মাওলানা হারুনুর রশিদ জদীদ এবং মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক।
সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- মুজাফ্ফর আহমদ, রফিক আহমদ সিকদার, ছব্বির আহমদ, মাওলানা আব্দুল গফুর, এইচ এম নুরুল আলম, নাছির উদ্দীন, জয়নাল আবেদীন, সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আব্দুর রশিদ এবং নুরুল আমিন সিকদার।
মাওলানা নেয়ামত উল্লাহর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন- মুফতি মিজানুর রহমান, আজিজুর রহমান, নুরুল আমিন, নুরুল হক, মিনহাজ উদ্দিন, কারী তৈয়ব, কারী সাদেক, মাস্টার আবুল কালাম, মাওলানা সলিম, আব্দুর রউফ, হাফেজ ছৈয়দ করিম, হাফেজ মুসলিম ইকবাল, আবু বক্কর সিদ্দিক, আব্দুর রহমান, আনোয়ারুল হক, সৈয়দ আহমদ।
সভাপতির বক্তব্যে মুহতামিম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিকদার বলেন, দুনিয়ায় শান্তি ও পরকালীন মুক্তির জন্য ওহিভিত্তিক শিক্ষার বিকল্প নেই। চাকমারকুল মাদ্রাসা যুগযুগ ধরে সেই শিক্ষাই দিয়ে যাচ্ছে। সাচ্ছা ঈমানদার ও হক্কানি আলেম তৈরীতে এই প্রতিষ্ঠান সুনামের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে চলেছে।
তিনি বলেন, চাকমারকুল এতদঞ্চলের জন্য একটি ঐতিহ্যবাহী ও প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষা-দীক্ষার পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিযোগিতাসহ উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার ক্ষেত্রেও এই মাদ্রাসাটি পিছিয়ে নেই। মাদ্রাসার পড়ালেখার মান অগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে সবার সহযোগিতা ও পরামর্শ দরকার।
অনুষ্ঠান শেষে মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত ১১ বিষয়ের উপর প্রতিযোগিতায় বিজয়ী কৃতি ছাত্রছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলো-
বার্ষিক পরীক্ষা উত্তেহাদুল মাদারীস: (সদর জামাতে নাহুম ও হাপ্তুম)
মুজিবুর রহমান, আব্দুল গণি, মিছবাহুল আবরার, ছৈয়দুল হক, মো: খোবাইব।
ক্বেরাত প্রতিযোগিতা: (দাওয়াজ দাহুম থেকে দাওরায়ে হাদীস)
আব্দুল করিম, আব্দুল ওয়াহিদ, মো: ইসহাক।
তারকীবি মুনাজারা: (জামাতে শশুম থেকে জামাতে ছিয়ুম)
আব্দুল করিম, আব্দুল ওয়াহিদ, মো: ইসহাক।
মুনাজারা: (জামাতে হাপ্তুম)
শহিদুল্লাহ, জুনাইদুর রহমান, মিছবাহ উদ্দীন।
মিযান মুনশায়েব এর মুনাজারা (জামাতে হাস্তুম)
ছৈয়দুল হক, মো: খোবাইব, আজিজুল হক।
তাইছিরুল মুত্তাদির এর মুনাজারা: (জামমাতে নাহুম)
মো: ফাইসাল, রাকিবুল করিম, মো: ছাবেত।
হস্তলিপি প্রতিযোগিতা: (জামাতে দাহুম থেকে দাওয়াজ দাহুম)
মো: ইসহাক, আব্দুল করিম, আমির হামজা, নেজামুদ্দিন, ফায়সাল উদ্দীন, মো: ফারুক।
হিফজ বিভাগ:
ইয়াছিন আরফাত ও আজিজ উদ্দীন।
নাজেরা বিভাগ: আলমগীর।
ক্বিরাত, সান্ত্বনা পুরস্কার:
জাহেদুল ইসলাম, মো: ইয়াছির, মো:ইসহাক, মো:হাসান, ইয়াছিন আরফাত।
নুরানী বিভাগের বার্ষিক পরীক্ষা-১৪৪০হি:২০১৯ইং
শামিম হোছাইন, উম্মে সালমা, ফারজানা খানম।
নুরানী বিভাগের বার্ষিক পরীক্ষা-১৪৪০হি:২০১৯ইং
তাসনুভা বশির ফারিয়া, উম্মে হাফসা, তাসনিয়া জাহান সাওদা।
নুরানী বিভাগের বার্ষিক পরীক্ষা-১৪৪০হি:২০১৯ইং
নুরুল ইসলাম নাওশাদ, সালাওয়া হাসনাত, রায়হান উদ্দীন।
নুরানী বিভাগের বার্ষিক পরীক্ষা-১৪৪০হি:২০১৯ইং
নাজিম উদ্দীন, মুমতাহিনা, ফাওয়াজ।

 

 

আপনার মতামত লিখুন :