• বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৫ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English

একসঙ্গে চলতেন তারা, একসঙ্গেই মারা গেলেন

চ্যানেল কক্স ডেস্ক
আপডেট : শনিবার, ৩০ জুলাই, ২০২২

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের ১১ যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ৬ জন আহত হয়েছেন। নিহত ১১ জনের মধ্যে চারজন মিলে প্রতিষ্ঠা করছিলেন আর অ্যান্ড জে কোচিং সেন্টার। একসঙ্গেই চলফেরা ছিলো তাদের, আজ একসঙ্গেই মারা গেলেন সবাই।

মারা যাওয়া আর অ্যান্ড জে কোচিং সেন্টারের চার শিক্ষক হলেন- রাকিব খান, তৌহিদুল আলম জিসান, জিয়াউল হক সজিব ও রেদুয়ান চৌধুরী।

স্বজনরা জানিয়েছেন, মাস দুয়েক আগে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে আমানবাজার জোগিরহাট এলাকায় তারা আর অ্যান্ড জে কোচিং সেন্টার চালু করেন। কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে খৈয়াছড়ায় গিয়েছিলেন তারা। ঘুরতে যাওয়ার আগে সকালে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কোচিংয়ের সামনে একটি ছবিও তুলেছিলেন সবাই মিলে।

জিয়াউল হক সজিবের বাবা হামিদ হোসেন বলেন, আমি একটি মুদির দোকানে কাজ করে দুই ছেলেকে পড়ালেখা করিয়েছি। ছেলে এমইএস কলেজে গণিতে অনার্সের তৃতীয় বর্ষে পড়ত। তিন বন্ধু মিলে কিছুদিন আগে কোচিং সেন্টারটি চালু করেছিল। ছেলে উপার্জন করতে চেয়েছিল, তার আগেই মারা গেল।

হোছাইন নামে একজন বলেন, কোচিংয়ের শিক্ষকরা খুবই ভালো ছিলেন। এলাকায় সবাই তাদের ভালো ছেলে হিসেবেই চিনতেন।

হাসপাতালে আসা ফারুক চৌধুরী নামে একজন বলেন, চারজনই আমার কোচিং সেন্টারের ছাত্র ছিল। গত জুনে নিজেরা কোচিং সেন্টার চালুর বিষয়ে আমাকে জানায়। আমিও তাদের কোচিং সেন্টার চালুর ব্যাপারে উৎসাহ দিয়েছিলাম।

তিনি বলেন, গতকাল জিসান ফোর-এইচ গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠানে রিপোর্টিং প্রোডাকশন অফিসার পদে যোগদান করেছিল।

নিহত রাকিবের চাচা মোজাম্মেল বলেন, রাকিব বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে কোচিং সেন্টার চালু করে। সে ঢাকায় একটি কলেজে পড়াশুনা করত।


আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ