গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির পাওনা আদায়ে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:২৬ PM, ১৭ অক্টোবর ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক  

গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির দাবি করা ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা পাওনা আদায়ে দুই মাসের অন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

বিচারপতি আবদুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীব সমন্বয়ে হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। আগামী ৫ নভেম্বর গ্রামীণফোনের আপিল শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত। এর ফলে এই সময়েরর মধ্যে ওই অর্থ আদায় করা যাবে না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

আদালতে গ্রামীণফোনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন, শরীফ ভূঁইয়া ও তানিম হোসেইন শাওন। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খন্দকার রেজা-ই-রাকিব।

গ্রামীণফোনের কাছে নিরীক্ষা আপত্তির দাবির ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা এবং রবির কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে বলে দাবি করে আসছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। কয়েক দফা চেষ্টায় সেই টাকা আদায় করতে না পেরে লাইসেন্স বাতিলের হুমকি দিয়ে নোটিশ পাঠানো হয়েছে দুই অপারেটরকে।

অন্যদিকে ওই টাকার পরিমাণ নিয়ে আপত্তি রয়েছে গ্রামীণফোন ও রবির। বিটিআরসি সালিশের মাধ্যমে বিষয়টির নিস্পত্তিতে রাজি না হওয়ায় আদালতের দ্বারস্থ হয় দুই অপারেটর।

এর আগে প্রায় ২৭টি খাতে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা দাবি করে গ্রামীণফোনকে গত ২ এপ্রিল চিঠি দেয় বিটিআরসি। এই চিঠির যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অর্থ আদায়ের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গ্রামীণফোন নিম্ন আদালতে একটি মামলা করে। এরপর গত ২৮ আগস্ট নিম্ন আদালত গ্রামীণফোনের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন না মঞ্জুর করেন। পরে ওই না মঞ্জুর আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে গ্রামীণফোন।

আপনার মতামত লিখুন :