আধিফত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রক্তাক্ত কালারমারছড়া মহেশখালীতে রশিদ বাহিনীর গুলিতে নিহত-১ আহত-২

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:০৮ AM, ১৮ অক্টোবর ২০১৯

মরজান আহমদ চৌধুরী,মহেশখালী থেকে ফিরেঃ
মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের বিবদামান প্রভাবশালী “খসরো ও কমলাবর” দুই ঘোষ্টির দীর্ঘদিনের চলমান আধিপত্য বিস্তারের বিরোধকে কেন্দ্র স্থানিয় রশিদ বাহিনীর এলোপাতাড়ি গুলিতে প্রতিপক্ষের মিজান নামে একজন নিহত হয়েছে।
গত ১৩ অক্টোবর রবিবার রাত সাড়ে ১১ টার সময় কালারমারছড়া বাজারের পূর্বপাশে এ হামলা -পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় রশিদ সহ আরও দুই জন গুরুত্বর আহত হয়। স্থানিয় লোকজন এগিয়ে এসে গুরুত্বর আহত অবস্থায় মিজানকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেড়িকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬ ঘটিকার সময় চট্টগ্রাম মেড়িকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মৃত্যুৎ বরন করেন।
জানাগেছে, সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত মিজান উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের মোঃ শাহ ঘোনা গ্রামের মোশতাক আহমদের পুত্র মিজানুর রহমান (৩৫ )।
নিহত পরিবারের ভাষ্যমতে, নিহত মিজান কালারমারছড়া বাজার এলাকার মামার বাড়ী থেকে দাওয়াত খেয়ে ফেরার পথে আগে থেকে উৎপেতে থাকা স্থানিয় ছৈয়দ আহমদের পুত্র শীর্ষ সন্ত্রাসী রশিদের নেতৃত্বে একদল পেশাদার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি করলে এক পর্যায়ে গুলি তার পেটে লেগে গুরুত্বর আহত হয়।
নিহতের পিতা মোশতাক আহমদ বলেন, স্থানিয় চেয়ারম্যান তারেক বাহিনীর লোকজন কালারমারছড়ায় একচ্ছত্র আধিফত্য বিস্তার করে আসছে। ফলে তার অত্যাচারে এলাকা থেকে বিতাড়িত হতে হয়েছে আমাদের পরিবারসহ অনেকের।
তিনি আর বলেন, আমাদেরকে এলাকা থেকে বিতাড়িত করে ক্ষান্ত হয়নি তিনি। তার বাহিনীর হাতে আমার ছেলেকে জীবন দিতে হয়েছে। আমি আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই! বর্তমানে কালারমারছড়া থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে স্থানিয় এলাকাবাসীর সূত্রে জানাগেছে।
মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর বলেন, কালারমারছড়া দুই গ্রুফের বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছে বলে শুনেছি। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :