মাতারবাড়ী ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলারদের তালিকা পুনঃ বিবেচনার দাবী তৃর্ণমুল কর্মীদের

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:০০ PM, ০৩ নভেম্বর ২০১৯

মারজান আহমদ চৌধুরী, কক্সবাজার।
মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিটি ওয়ার্ডে চলতি মাসের যে কোন দিন সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্টিত হতে যাচ্ছে।

এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরগরম হয়ে উঠেছে মাতারবাড়ি প্রতিটি ওয়ার্ড। এখন নির্বাচনী হাওয়া লেগেছে চায়ের দোকান থেকে শুরু করে গ্রামের আনাচে-কানাচে।
এরই ধারা বাহিকতায় ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল সম্পন্ন করতে ইতি মধ্যে ১৫১ জন কাউন্সিলারের তালিকা অনুমোদনের কাজ সম্পন্ন করেছে।

তবে অধিকাংশ কাউন্সিলার ও প্রার্থীদের অভিযােগ বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সম্পাদক তাদের স্বার্থ সিদ্বি করার জন্য জামায়াত ও বিএনপি’র একটিভ কয়েকজন কর্মীকে কাউন্সিলারের তালিকায় অন্তভূর্ত্ত করেছে। এছাড়া একই পরিবার থেকে ২/৫ জন করে সদস্য ও নিয়েছে। যার কারণে আওয়ামীলীগের বহু নিবেদিত কর্মী এ তালিকা থেকে বাদ পড়ে গেছে।

সভাপতি ও সম্পাদকের ইশারায় কাউন্সিলার হয়েছে একই পরিবারের অনেকেসহ তাঁদের ঘনিষ্টজনরা বলে অভিযোগ করেছেন ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়া আওয়ামীলীগের তৃর্ণমূলের কর্মী আলতাফ উদ্দিন।
এ ধরণের একই পরিবার থেকে ৪/৫ জন করে নিজের পছন্দনিয় মতে কাউন্সিলার করায় দলের জন্য স্বচ্ছ ও ত্যাগী নেতারা এবার নির্বাচনে বাদ পড়ে যাওয়ার আশংকা করেছেন তৃণমুল কর্মীরা।

মুদ্দা (সাফ) কথা ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলারের তালিকাটি পুনঃবিবেচনার জন্য দাবী জানিয়েছেন ৬ নং ওয়ার্ডের তৃণমুল পর্যায়ের আওয়ামীলীগ কর্মীরা।
অপরদিকে মাতারবাড়ীতে যারা দলের দুঃসময়ে মিছিলে অগ্রভাগে ছিল ৬ নং ওয়ার্ডের তিতামাঝির পাড়ার বাসিন্দা আওয়ামী লীগ কর্মী এলাদানের পুত্র আহমদ হোসেন, ইসহাকের পুত্র শুক্কুর, রশিদের পুত্র চায়ের দোকানদার জনু, আফালতুনের পুত্র শাহ আলম, নুরুল ইসলামের পুত্র আলতাফ উদ্দিন, নুরুল ইসলামের পুত্র জমির উদ্দিন, মৃত জকির আহমদের পুত্র আনছারুল করিম, উকিল আহমদের পুত্র মোক্তার হোসেন, বদর উদ্দিনের পুত্র আলা উদ্দিন, মোস্তাক আহমদের পুত্র কালু মিয়া, মৃত আফালতুনের পুত্র বাদশাহ সওদাগর, দরবেশ আলীর পুত্র আব্দুল গনি, মৃত গোরা মিয়ার পুত্র কালা সোনাকে কাউন্সিলারের তালিকায় অন্তভূর্ত্ত না করায় তৃর্ণমূলের আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের মাঝে হতাশা ও চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এছাড়া ও আনাড়ি ৪ জন উপদেষ্টা থেকে মিথ্যা কথা বলে স্বাক্ষর নিয়ে তাড়াহুড়া করে তালিকা করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে ওই সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে।

মাতারবাড়ী তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ ফারুক বলেন,বর্তমান সভাপতি ও সম্পাদক মনগড়া তালিকা করায় প্রকৃতি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ভোটার করা হয়নি। তা অত্যন্ত দুঃখজনক। তালিকা পূর্ণ বিবেচনার দাবি জানাচ্ছি।

আওয়ামী লীগ নেতা, আবু তাহের বলেন প্রকৃতি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের তালিকায় অন্তভূক্ত করা হয়নি। পুনরায় তালিকা করার দাবি জানাচ্ছি।

মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার পাশা চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আশেক উল্লাহ রফিক এমপির সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন এ বিষয়ে তালিকা থেকে বাদ পড়া আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাকর্মীরা।

আপনার মতামত লিখুন :