ধুলাময় টেকনাফ সড়কঃ জনদুর্ভোগ চরমে !

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:০৫ PM, ২৬ নভেম্বর ২০১৯

এম. কলিম উল্লাহ, উখিয়া:

শহীদ এটিএম জাফর আলম সড়কের চলমান সংস্কার কাজের ধুলাবালিতে প্রতিদিন হাজার হাজার যাত্রী ড্রাইভার, ছাত্র শিক্ষক, পথচারী, সড়কের উভয় পাশের দোকানদার বাজার ব্যবসায়ীদের চরম দুর্ভোগ সহ্য করতে হচ্ছে।

সড়ক সংস্কার কাজে ধুলাবালি নিয়ন্ত্রণে ঠিকাদার প্রতিষ্টান সড়কে পর্যাপ্ত পরিমান পানি না ছিটানোর কারণে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে অনেকে মনে করেন। ফলে এতে করে পরিবেশ দূষণসহ ভুক্তভোগী মানুষের শ্বাস কষ্ট, বিভিন্ন রোগ ব্যাধি সৃষ্টি, যান বা মানুষ চলাচলে সমস্যা এবং সড়ক সংলগ্ন প্রায় ৪০-৫০টি বাজার ব্যবসায়ীদের প্রতিদিনের ব্যবসা বানিজ্যের সমস্যা হচ্ছে।

কক্সবাজার সরকারী কলেজের ইতিহাস বিভাগের ছাত্র মুহিব্বুল্লাহ বলেন, সকালে কলেজে যাওয়ার পথে ধুলাবালিতে ঢেকে যায় শরীর।ঘরে ফিরে মনে হয় যেন মাঠে কাজ করে আসছি।

ধুলাবালির স্বাস্থ্যের ক্ষতি বিষয় জানতে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিকল্পনা পরিচালক ডা. আব্দুল মান্নানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ধুলাবালি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। সবার ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক সমস্যা না করলেও দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা করতে পারে। সাধারণত যেসব ধুলাবালি খালি চোখে দেখা যায় না, সেগুলো বেশি ক্ষতিকর। অনেক ক্ষেত্রে সামান্য পরিমাণ ধুলাও তাৎক্ষণিক সমস্যা দেখা দেয়। যেমন চোখ জ্বালাপোড়া, কাশি, হাঁচি, অ্যালার্জিক রাইনাইটিস, হাঁপানি ইত্যাদি। আবার যাঁদের আগে থেকেই ফুসফুসের সমস্যা আছে, তাঁদের অল্পতেই সমস্যা জটিল করে তুলতে পারে। ধুলাবালি কারণে সাধারণত শিশু, বৃদ্ধ ও যাদের ডাস্ট অ্যালার্জি আছে, তাঁরা বেশি ঝুঁকির মধ্যে থাকেন।

পালংখালী ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী এক ফেইসবুক স্টাটাসে বলেন, টেকনাফ সড়ক পুনঃনির্মানে আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। এ জন্য সরকারকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই। কিন্তু নিয়োগকৃত টিকাদারকে ঘৃনা করতে বাধ্য হচ্ছি। কারণ, তাদের অবহেলা ও অদক্ষতার জন্য কোর্টবাজার হতে পালংখালী পর্যন্ত প্রতিদিন যান চলাচল কারীদের দুর্ভোগের শেষ নাই। নির্মানাধীন ব্যস্ততম এ সড়কে পানি ছিটানোর নিয়ম না থাকলেও সড়ক বিভাগের উদ্যোগে পর্যাপ্ত পানি ছিঠানো প্রয়োজন। তাছাড়া মাইলের পর মাইল কার্পেটিং উপড়ানো সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চলাচলে শরীরের ব্যাথায় রাত্রের ঘুমে সমস্যা হচ্ছে।

আরাকান টেকনাফ সড়কটির আশপাশ বাজার, এলাকা এখন বায়ুদূষণে ভরে গেছে। এবং নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে যাত্রী জনগন। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সওজ এবং সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

আপনার মতামত লিখুন :