আজ কক্সবাজারেও নতুন বইয়ের ঘ্রাণ নিবে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:৪৪ AM, ০১ জানুয়ারী ২০২০

শাহীন মাহমুদ রাসেল

নতুন বছরের প্রথম দিন আজ বুধবার উদ্ভাসিত হবে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাসিতে। প্রথম থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ করা হবে আজ। সারা দেশের ন্যায় কক্সবাজারেও ‘বই উৎসব’ পালনে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

কক্সবাজারের সরকারি ও বেসরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ৭ লাখ ৯৫ হাজার ৭২৬ জন শিক্ষার্থী বছরের প্রথম দিনে বই উৎসবের আনন্দে ভাসবে। জেলা মোট নতুন বই বিতরণের লক্ষ্য মাত্রা হচ্ছে ৭২ লাখ ৮ হাজার ২২৮টি।

জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিসগুলোতে প্রথম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীকে নতুন বই দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। চাহিদামত বই ইতোমধ্যে বিদ্যালয়েগুলোতে সরবরাহ করা হয়েছে। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই উৎসব করা হবে। বিগত সময়ের মত আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে বছরের শুরুতে বিনামূল্যে সরকারের দেওয়া নতুন বই বিতরণ করবে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

শিক্ষা মাধ্যমিক অফিস সূত্র মতে, কক্সবাজার জেলায় ৬ষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা, ইংরেজি, দাখিল, ভোকেশনাল ও ইবতেদায়ীতে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৭৬২জন। এদের জন্য বই বিতরণ করা হবে ৫৭ লাখ ৭৭ হাজার ৩৪৪টি। এরমধ্যে বাংলা ভার্সনের ২ লাখ ১৬ হাজার ৪৪৬ জন শিক্ষার্থীর মাঝে বই বিতরণ করা হবে ৩১ লাখ ৬১ হাজার ৪৭১টি। ইংরেজি ভার্সনের ৯২০ জন শিক্ষার্থীর জন বই বিতরণ করা হবে ১৪ হাজার ১৫৯টি। দাখিলে ৯৯ হাজার ৪৯৮ জন শিক্ষার্থীর জন্য বই বিতরণ করা হবে ১৫ লাখ ২১ হাজার ৬৫৬টি। এসএসি ভোকেশনালে ১ হাজার ৩৯০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে বই বিতরণ করা হবে ১৮ হাজার ৮৩২টি। দাখিল ভোকেশনালে ১৩০ জন শিক্ষার্থীর জন্য বই বিতরণ করা হবে ২ হাজার ১৬০টি। এছাড়া ইবতেদায়ীর ১ লাখ ৪৬ হাজার ৩৭৮ জন শিক্ষার্থীর জন্য নতুন বইয়ের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ১০ লাখ ৪৯ হাজার ৬৪৬টি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, জেলার আট উপজেলায় চাহিদামতো বই ইতোমধ্যে সরবরাহ করা হয়েছে। উপজেলা শিক্ষা অফিস বিদ্যালয় প্রধানগণ নিজ নিজ প্রতিষ্টানে বই নিয়ে যাচ্ছেন।

প্রাথমিকে প্রথম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ১৫ লাখ ৮ হাজার ২২৮টি বই সরবরাহ করা হয়েছে। ২০২০ শিক্ষাবর্ষে প্রথম শ্রেণী থেকে ৫ম জেলায় শিক্ষার্থীর সংখ্যা হচ্ছে ৩ লাখ ৩০ হাজার ৯৬৪ জন।

২০১০ সাল থেকে বিনামূল্যে বই বিতরণ শুরু করে সরকার। প্রতি বছর জানুয়ারি মাসের প্রথমদিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের হাতে বই তুলে দেওয়া ‘বই উৎসব’ একটি রেওয়াজে পরিণত হয়েছে। সেজন্য নতুন বছরের জানুয়ারি মাসের পহেলা তারিখে উৎসবমুখর পরিবেশে সর্বস্তরের শিশু-কিশোর শিক্ষার্থীরা পাঠ্যপুস্তক উৎসবে শামিল হয়ে থাকে।

এদিকে সরকারি উদ্দ্যেগে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের বিতরণকে যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন জেলার শিক্ষাবিদরা।

তারা আরও মনে করছেন, বর্তমান সরকার বছরের প্রথম দিনে অর্থ্যাৎ ১ জানুয়ারীতে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন সব বই তুলে দিচ্ছে। সরকারের এই যুগোন্তকরী পদক্ষেপ পৃথিবীর বুকে দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে। কেননা পৃথিবীর কোন দেশে বছরের প্রথম দিনে আনন্দঘন উৎসবমূখর পরিবেশে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়ার নজির নাই।

উল্লেখ্য, সারা দেশের বিদ্যালয়গুলোতে বই উৎসবে মাতবে শিক্ষার্থীরা। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এবার ৪ কোটি ৩৭ লাখ ৬ হাজার ৮৯৫ জন শিক্ষার্থীর জন্য ৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৯০ হাজার ১৬২টি বই ছাপা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :