ত্রাণ নিয়ে কুতুবদিয়ার অলিগলি ঘুরে বেড়াচ্ছেন ইউএনও – মীর

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:১১ AM, ০১ এপ্রিল ২০২০

কাইছার সিকদার:

বিশ্বজোড়ে চলমান আতঙ্ক নোভেল করোনা৷ এরি মধ্যে যেন স্থবির হয়ে গেছে গোটা পৃথিবী, বাংলাদেশ ও তার ব্যতিক্রম নয়৷ শহর থেকে গ্রামে সকল শ্রেণী পেশার মানুষ আজ নিজ নিজ গৃহে বন্দি, মৃত্যু যেন পাহারা দিয়ে বসে আছে ঠিক দরজার বাহিরে৷ তার মাঝে ও কিছু সাহসী মানুষ নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে ছুটে চলেছেন অলিগলি হয়ে, অবরুদ্ধ উপার্জনহীন অসহায় মানুষের দ্বারে দ্বারে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে, তাঁদের একজন কুতুবদিয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা-জিয়াউল হক মীর ৷ তিনি অব্যাহত লড়ে যাচ্ছেন করোনার সংক্রমণ থেকে কুতুবদিয়াবাসীকে নিরাপদ রাখতে ও তাঁদের খাদ্য দুর্ভোগ থেকে মুক্ত রাখতে৷

এ ছাড়াও বাংলাদেশ নৌ বাহিনী প্রতিনিয়ত প্রশাসনিক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় কুতুবদিয়া উপজেলায় ও শুরু হয়েছে করোনার কারণে গৃহ বন্দি অতি দরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ এতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা -জিয়াউল হক মীর সরেজমিনে উপস্থিত থেকে প্রতিটা অসহায় মানুষের কাছে ত্রাণ পৌছানো নিশ্চিত করে যাচ্ছেন৷ গতকাল ৩০শে মার্চ সোমবার কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলে জানা যায় দ্বীপের ৬টি ইউনিয়নের মোট ১৬০০ পরিবারের কাছে ২০ কেজি করে চাল বরাদ্ধ দিচ্ছেন৷

তিনি আরো জানান কুতুবদিয়ার প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে শুরু করে সব জায়গায় অতি দরিদ্র অভাবী মানুষের কাছে যথা সাধ্য ত্রাণ সহায়তা পৌছে দেওয়া হবে যাতে কোন মানুষ অনাহারে কষ্ট না পায় কুতুবদিয়ায়৷ এ ছাড়া তাঁহার ব্যাক্তিগত উদ্যোগে সামর্থ্যবান মানুষের কাচ থেকে প্রাপ্ত সহায়তা এক সাথে সমন্বয় করে কুতুবদিয়ার বিভিন্ন পেশা জীবী মানুষ রিক্সা চালক, টেম্পু চালক, মাহিন্দ্রা অটো চালক, জীপ চালকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন এবং পর্যায়ক্রমে মুদি দোকানি ,ধৌত কারক, নাপিত সহ অন্যান্য ক্ষুদ্র বা স্বল্প আয়ের ব্যাবসায়ী যারা ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের কারণে সমস্যায় আছেন তাদের কাছে ও ত্রাণ সামগ্রী পৌছে দেবেন বলে আশ্বাস দেন তিনি৷ দুঃসময়ে দুস্থ মানুষ গুলোকে নিরাপদে ও সুস্থ রাখার এই আপ্রাণ প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানিয়ে প্রশংসায় মেতেছেন দ্বীপের সুশীল সমাজ থেকে শুরু করে কেটে খাওয়া মানুষের হৃদয়ে৷

আপনার মতামত লিখুন :