ফেসবুকে চাল চুরির পোস্টে কমেন্ট করায় থানায় অভিযোগ, নিন্দা ও প্রতিবাদ

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:০৮ AM, ১৫ এপ্রিল ২০২০

বার্তা পরিবেশক:

কক্সবাজার পৌরসভার এক মহিলা কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চাল চুরির পোস্টে কমেন্ট করায় এলাকার নিরীহ ছাত্র ও যুবকদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ অভিযোগের খবরে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, কক্সবাজার পৌরসভার ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর জাহেদা আকতার করোনায় সরকারের বিশেষ বরাদ্দের চাউল গরিব-অসহায়দের না দিয়ে খেয়ে ফেলছে এবং সেই অভিযোগে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আটক করেছে মর্মে প্রচার হলে একটি ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করলে সেখানে কমেন্ট করে ৮নং ওয়ার্ডের কয়েকজন ছাত্র ও যুবক। সেই পোস্ট ও কমেন্ট দেখে কাউন্সিলর ও তার স্বামী ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। এরপর তাদের বিরুদ্ধে গত ১২ এপ্রিল রাতে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে এলাকার নিরীহ ছাত্র-যুবকদের বিরুদ্ধে এহেন মিথ্যা অভিযোগ এনে এই করুন পরিস্থিতিতে অভিযোগ দায়ের করে অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ করলে ফুঁসে উঠে এলাকার শান্তিপ্রিয় জনগণ। তারা দ্রুত এই কথিত অভিযোগ দ্রুত প্রত্যাহার চাই। অন্যথায় উক্ত মহিলা কাউন্সিলের বিরুদ্ধে মানববন্ধনসহ মামলা করারও প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান।

অপপ্রচার ও হয়রানির শিকার কলেজ ছাত্র আনাস, ছাত্রলীগ নেতা লিটন ও আবদুল মোতালেব লালু জানান, একজনের ফেসবুকে তারা সামান্য কমেন্ট করেছে অসহায়দের অবস্থা দেখে। কিন্তু মুহুর্তেই সেই কমেন্ট ডিলেট করে দেয়া হয়েছে। তারপরেও কেন আমাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়ে পত্রপত্রিকায় আমাদের নামে সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে। তা আমাদের জন্য খুবই বিব্রতকর। উক্ত সংবাদমাধ্যমে আমাদের বানানো হয়েছে দুষ্কৃতিকারী, অবৈধ অস্ত্রধারী, বখাটে, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। যাহা খুবই লজ্জা জনক ও মানহানিকর।

তারা আরো জানান, মহামারি করোনার পর থেকে আমরা লকডাউন ও হোম কোয়ারেন্টাইনের কারনে ঘরে আছি। এমতাবস্থায় উক্ত সংবাদ ও অভিযোগের খবর পেয়ে আমরা অত্যান্ত মর্মাহত ও দুঃখিত। কারণ আমাদের বৈদ্যঘোনা এলাকায় ও শহরে যথেষ্ট সুনাম আছে। পরিবারের মা-বাবা, ভাই-বোন সবাই সুশিক্ষিত এবং পরিচিত এবং আমাদের জীবনে কোনো দিন খারাপ এবং অন্যায় কাজে নিজেকে জড়িত করি নাই। আমাদের বিষয়ে এলাকায় তদন্ত করলে একবিন্দু পরিমান দোষ-ত্রুটি বের করতে পারবে না।

আমরা মনে করি, এলাকায় হয়তো বিশেষ মহলের ইন্ধনে আমাদের হেয় করার জন্য এবং পরিবারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার কু-মানসে আমাদের জড়ানো হয়েছে। আমরা বুকে হাত রেখে বলতে পারবো, বৈদ্যঘোনা এলাকার বাসিন্দা হিসেবে এবং আমাদের ক্লিন ইমেইজকে নষ্ট করতে কোন কুচক্রি মহলের প্ররোচনায় এই অভিযোগ দায়ের করেছেন। আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি উক্ত সংবাদ ও মিথ্যা অভিযোগে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী:-
আবদুল মোতালেব লালু, আনাস মাহমুদ ও লিটন।
বৈদ্যঘোনা, কক্সবাজার পৌরসভা।

আপনার মতামত লিখুন :