নাইক্ষ্যংছড়ি আব্দু রহমান মিস্ত্রি পরিবারের গড়ে তোলা বাগান ঘোনা রোহিঙ্গা পল্লী- ২ তে মাদকের সম্রাজ্য।

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৩৮ PM, ০৯ জুন ২০১৯

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধিঃ  নাইক্ষ্যংছড়িতে বাগান ঘোনার মধ্য অবৈধ ভাবে পাহাড় কেটে মিস্ত্রী পরিবার বিক্রয় করেছে সাম্প্রতিক সময়ে সেকান্দর নামক এক রোহিঙ্গা ইয়াবা ব্যবসায়ীকে।
এখানে উপরে নিচে দুটি চেকপোষ্ট চেকপোস্ট রয়েছে।ইয়াবা, গাজা ও বিদেশি মদ সেবন করার জন্য রয়েছে আলাদাভাবে টং ঘর সাজানো থাকে।
নাইক্ষ্যংছড়ি পাশ্ববর্তী কচ্ছপিয়া ও গর্জনিয়া সহ এলাকার মাদকাসক্ত লোকজনের নিয়মিত আড্ডা বসে রাত দিন।
রোহিঙ্গা সিকান্দর ও ইয়াবা ব্যবসায়ী নুরুল আবসার মিস্ত্রি যৌথ ভাবে এই ব্যবসায় ইনভেস্ট করে আসছে দীর্ঘদিন। মূলতঃ রোহিঙ্গা সেকান্দর কে ইয়াবা চালান পরিবহনের কাজে ব্যবহার করে আছে নুরুল আবছার ।
এখানে খদ্দের সংগ্রহ কাজ করে নুরুল আবদারের ভাগিনা শাহাদাত রাসেল।
এই এলাকায় অপরিচিত মানুষ প্রবেশ নিষেধ।
সেই ঐতিহাসিক রেডক্রিসেন্ট এর ত্রাণের টিন ও টুলস ইট দিয়ে তৈরি বাগান ঘোনায় গড়ে তুলা নুরুল আবছার মিস্ত্রির পতিতালয়।
এখানে একটি রোহিঙ্গা পরিবার রয়েছে, তার সাথে রয়েছে (শিউ- মোতা/ সংক্ষিপ্ত নাম/ নামের সুন্দরী নারী। যাদের দিয়ে নুরুল আবছার পতিতার ব্যবসা চালাচ্ছে।
সমাজের উঁচু নিচু গণ্যমান্য এমনকি প্রশাসনের লোকজনের রাত দিবারাতে আসে অনৈতিক মেলামেশা করতে।
আশপাশের এলাকাবাসী প্রতিবাদ করলে তাদের মারধার করা হয় তাই চুপচাপ আতঙ্কিত সকলে।এলাকায় বাসীর দাবী দ্রুত যদি রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাহলে নাইক্ষ্যংছড়ি মাদকশক্তের পরিণত হবে।
এলাকায় বাসীর প্রশাসনের কাছে দৃষ্টি আকর্ষণ কামনা করি।

আপনার মতামত লিখুন :