“সৃষ্টিকর্তার করুনায় আমরা করোনাকে হারাবো, প্রয়োজন বিশ্ব ঐক্য ” | সি কক্স নিউজ

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:২৩ AM, ০৭ মে ২০২০

এম.এস. ইরফান চৌধুরী:

কোভিড-১৯ যা করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত – সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমের শিরোনামে প্রাধান্য বিস্তার করেছে। বিশ্বের বিভিন্ন অংশে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। পুরো বিশ্বে লক্ষ অধিক মানুষ মারাগেছে এখনো পর্যন্ত। সাধারণ সতর্কতা অবলম্বন করে আপনি এই ভাইরাসটির সংক্রমণ ও বিস্তারের ঝুঁকি কমিয়ে আনতে পারেন।

শ্বাসতন্ত্রের অন্যান্য অসুস্থতার মতো এই ভাইরাসের ক্ষেত্রেও সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা এবং জ্বরসহ হালকা লক্ষণ দেখা দিতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং বিশেষজ্ঞ ডাঃ দের মতে এইধরনের লক্ষন দেখা দিলে গরম পানিয় যেমন: চা, কফি, স্যুপ এবং ভিটামিন সি জাতীয় লেবু, আম, মাল্টা, আর সিবিট এগুলো বেশি বেশি খেতে হবে এবং নিজেকে সবসময় জীবাণু মুক্ত রাখতে হবে।

কিছু মানুষের জন্য এই ভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক হতে পারে। এর ফলে নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট এবং অর্গান বিপর্যয়ের মতো ঘটনাও ঘটতে পারে। তবে খুব কম ক্ষেত্রেই এই রোগ মারাত্মক হয়। এই ভাইরাস সংক্রমণের ফলে বয়স্ক ও আগে থেকে অসুস্থ ব্যক্তিদের মারাত্মকভাবে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি বেশি। ”দুর্যোগের সময় মনুষত্যে পরীক্ষা হয়। এখনই সময় পরস্পরকে সহায়তা করার, মানবতা প্রদর্শন করা আমাদের উচিৎ”

”নানা দুর্যোগ-সঙ্কটে বাঙালি জাতি সম্মিলিতভাবে সেগুলো মোকাবিলা করেছে। করোনা ভাইরাসও একটা যুদ্ধ। এ যুদ্ধে আপনার দায়িত্ব ঘরে থাকা এবং যাদের সামর্ত আছে তাদের দ্বায়িত হত দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়ানো, এর মধ্যে চলে আসলো পবিত্র মাহে রমজান আমরা যারা সামর্থবান আছি হইতো তারা ভালো মন্দ খেতে পারছি কিন্তু আমাদের প্রতিবেশীদের প্রতি খেয়াল রাখা এবং তাদের পাশে দাড়ানো আমাদের কর্তব্য।

করোনা এই দুঃসময়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার সবকিছু প্রায় নিয়ন্ত্রণে রেখেছে এই জন্য শেখ হাসিনার সরকারকে দেশের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এবং সরকার ও প্রশাসনকে আমাদের সাহায্য করা উচিৎ আমরা নিজ নিজ দায়িত্বে নিজের বাড়িতে অবস্থান করি।

বহির্বিশ্বের যে দেশগুলো করোনায় মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত এবং গণহারে মানুষের মৃত্যুর হার বেড়েছে, তার তুলনায় আমাদের দেশে এখনো নিয়ন্ত্রণে আছে কিন্তু সেটা কতক্ষণ যতক্ষণ আমরা সরকারের বিধিনিষেধ মান্যকরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবো, তাই সকলের সচেতনতা বৃদ্ধি করা অতিব জরুরি অন্যথায় আমাদের ও সেই গণমৃত্যের মিছিলের প্রহর গুনতে হবে।

আরও জটিল ও শক্তিশালী হতে পারে করোনা..তাই সময় থাকতে সকলে দেশকে এবং দেশের মানুষকে রক্ষা করি। করোনা একটা যুদ্ধ,”স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে সকলে যার যার বাড়িতে অবস্থান করলে, সামাজিক দুরত্ব বঝাই রাখলে, আমাদের সকলের প্রচেষ্টায় এ যুদ্ধে জয়ী হব,” ইনশাআল্লাহ্‌।

লেখক:
এম.এস. ইরফান চৌধুরী
সহ-সভাপতি
বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগর।

আপনার মতামত লিখুন :