উলুবনিয়া সীমান্তে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা মাদক ব্যবসায়ী নিহত | সি কক্স নিউজ

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:০৯ PM, ০৯ মে ২০২০

ওমর ফারুক,টেকনাফ থেকে:

টেকনাফের হোয়াইক্যং উলুবনিয়া সীমান্ত এলাকায় মাদকের চালান খালাসের সময় গোলাগুলিতে দুই অজ্ঞাত রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত হয়েছে। এসময় তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার (৯ মে) ভোররাতে উপজেলার হোয়াইক্যংয়ের উলুবনিয়া সীমান্ত পয়েন্টে মাদকের চালান খালাসের সংবাদ পেয়ে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাসের নেতৃত্বে হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মশিউর রহমানের সমন্বয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গেলে মাদক কারবারী সিন্ডিকেটের সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করলে পুলিশের এসআই মশিউর রহমান ও এএসআই আরিফুর রহমান আহত হয়। পরে পুলিশও আর্তরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করলে মাদক কারবারী চক্রের হামলাকারী সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে ১লাখ ৫৮হাজার ইয়াবা, ২টি এলজি, ১০ রাউন্ড তাজা কার্তুজসহ গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাত রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. জাকারিয়া মাহমুদ জানান, ভোররাত ৩টার দিকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ দুই রোহিঙ্গাকে নিয়ে আসে, সাথে দুই পুলিশ সদস্যও আহত হন বলে জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আহত দুই পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিয়ে, উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদক কারবারী গ্রুপের দুই সদস্যকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। কক্সবাজার হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যায়। তাদের মৃতদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, নিহত ২ জনই রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা নুর মোহাম্মদ ও মোঃ রফিক। স্থানীয় সুত্রে আরও জানা যায়, এরা দীর্ঘদিন যাবৎ মাদক ব্যবসার পাশাপাশি সন্ত্রাসী কর্মকান্ডেও লিপ্ত ছিল। করোনাভাইরাস সংকটে সরকার ঘোষিত লকডাউনকে পুঁজি করে বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্টে এপার-ওপার নিয়ন্ত্রণকারী মাদক কারবারী সিন্ডিকেট রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি স্থানীয় কিছু দূবৃর্ত্তদের ব্যবহার করে মাদকের অপতৎপরতা এখনো চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা যায়।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ প্রতিবেদককে এই অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এই ব্যাপারে তদন্ত স্বাপেক্ষে পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আপনার মতামত লিখুন :