কক্সবাজারে জেলার জন্য আজ থেকে নির্দেশনা মেনে চলতে হবে

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:২৯ PM, ১০ মে ২০২০

ছৈয়দ আলম : করোনা ভাইরাস রোধকল্পে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের নির্দেশনার আলোকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত কক্সবাজার জেলা কমিটি কর্তৃক কক্সবাজার জেলার জনসাধারণের জন্য অনুসরণীয় বিধানাবলী জারী করেছে। এসকল নির্দেশনা মেনে চলতে জেলার সর্বস্তরের মানুষকে অনুরোধ জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন।
১) করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধকল্পে জনগনকে অবশ্যই ঘরে অবস্থান করতে হবে। ২) রমজান ও ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ১০ মে হতে সীমিত পরিসরে সকাল ১০ টা হতে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা যাবে। তবে ক্রয়-বিক্রয়কালে পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করতে হবে। বড় বড় শপিংমলের প্রবেশমুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। শপিংমলে আগত যানবাহনসমূহকে অবশ্যই জীবানুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখতে হবে।
৩) জেলার সকল রেস্তোরা শুধুমাত্র পার্সেল সার্ভিস প্রদানের জন্য সকাল ১০টা হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। রেঁস্তোরার অভ্যন্তরে কোন অবস্থাতেই খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা রাখা যাবে না।
৪) দোকানপাট এবং শপিংমলসমূহ আবশ্যিকভাবে বিকাল ৪ টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে।
৫) ঔষুধের দোকান ও জরুরি চিকিৎসাসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ দিন-রাত ২৪ ঘন্টা খোলা থাকবে।
৬) মাস্ক পরিধান ব্যতীত কোন ক্রেতা দোকানে প্রবেশ করতে পারবে না।
৭) সকল বিক্রেতা/দোকান কর্মচারীদের মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লাভস পরিধান করতে হবে।
৮) প্রতিটি শপিংমল/বিপনী বিতান এর সামনে আবশ্যিকভাবে সতর্কবাণী “করোনা স্বাস্থ্য বিধি না মানলে, মৃত্যু ঝুঁকি আছে” সংবলিত ব্যানার টানাতে হবে।
৯) পণ্যবাহী গাড়িসমূহ এ জেলায় কেবলমাত্র সকাল ৬ টা হতে সকাল ১০ টার মধ্যে মালামালসমূহ লোড/আনলোড করতে পারবে।
১০) পণ্যবাহী কোন গাড়ি এ জেলায় সকাল ১০ টা হতে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত কোন ক্রমেই চলাচল করতে পারবে না। তবে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত গাড়িসমূহ শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মহোদয়ের দেয়া অনুমতিপত্র মতে চলবে।
১১) কক্সবাজার জেলার সাথে অন্যান্য জেলার এবং কক্সবাজার জেলাধীন আন্ত:উপজেলার গণপরিবহন/ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।
১২) স্ব-স্ব উপজেলায় আভ্যন্তরীণ গাড়িমূহের চলাচল সকাল ১০ টা হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সীমিত পরিসরে চালু থাকবে। বিকাল ৫ টার পর হতে সকল প্রকার গাড়ি (ব্যক্তিগত/ভাড়ায় চালিত) চলাচল বন্ধ থাকবে।
১৩) সাধারণ ছুটি/চলাচল নিষেধাজ্ঞাকালীন জরুরি পরিসেবা (যেমন-বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও অন্যান্য জ¦ালানী, ফায়ার সার্ভিস এর গাড়িসমূহের) চলাচল নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।
১৪) চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও কর্মী, রোগী বহনকারী এম্বুলেন্স এবং ঔষুধসহ চিকিৎসা সরঞ্জামাদি বহনকারী যানবাহন দিন-রাত ২৪ ঘন্টা চলাচল করতে পারবে।
১৫) সাধারণ ছুটি/চলাচল নিষেধাজ্ঞাকালীন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা যাবে না।
১৬) কক্সবাজার জেলাধীন সকল ব্যাংকের শাখাসমূহ তাদের কার্যক্রম বাংলাদেশ ব্যাংক এর নির্দেশনা অনুযায়ী পরিচালনা করবে।

আপনার মতামত লিখুন :