মহেশখালীতে হতদরিদ্র কর্মহীন ও শ্রমজীবী মানুষের মাঝে কালারমারছড়া নবদূত যুব উন্নয়ন ক্লাবের ত্রাণ বিতরণ | সি কক্স নিউজ

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:১৩ PM, ১১ মে ২০২০

এ.এম হোবাইব সজীব,মহেশখালী থেকে:

মহেশখালী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্টান কালারমারছড়া নবদূত যুব উন্নয়ন ক্লাব এর পক্ষ থেকে চলমান করোনা মহামারিতে হতদরিদ্র কর্মহীন শ্রমজীবি মানুষের মাঝে ত্রান বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের মোঃ শাহঘোনা, ফকিরজুমপাড়া, অফিসপাড়া, ছামিরাঘোনা, নাপিতপাড়া, নয়াপাড়া, নোনাছড়ি ও আঁধারঘোনা গ্রামে হতদরিদ্র কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের মাঝে এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

১১ মে (সোমবার) দুপুর ২ টার সময় সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে নবদূত ক্লাবের পরিচালক মাস্টার শফিউল আলমের উপস্থিতিতে কালারমারছড়া করোনায় গৃহবন্দি, কর্মহীন, অসহায়, হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ১ম ধাপে এই ত্রান বিতরণ করা হয়।

এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্য মোজাম্মেল হক সহ ক্লাবের সিনিয়র সদস্যদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণে অংশ গ্রহণ করেন মোঃ আলাউদ্দীন, মোরশেদ, কামরুল হাসান, মোঃ আলী, মোঃ জসিম উদ্দিন প্রমূখ।

উল্লেখ্যঃ ঐতিহ্যের ধারকবাহক নবদূত ক্লাবটি ৪ঠা এপ্রিল ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠা হয়েছিল মহেশখালীর কালারমারছড়া ইউনিয়নে। হাটি-হাটি পা-পা করে এই ক্লাবটি ২৪ বছরে পা রেখেছে। এ ক্লাবের সদস্যদের আর্দশের কথা লিখে শেষ করা যাবেনা।

কালারমারছড়া নবদূত যুব উন্নয়ন ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম এরফানুল হক তারেক ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মুনতাসির মামুন এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমাদের ক্লাবটি প্রায় দুই যুগ অতিবাহিত হয়েছে। এক সময় নবদূত ক্লাবের আয়োজনে উপজেলার সর্বোচ্চ আসর বসতো কালারমারছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে। দুর-দুরান্ত থেকে ক্রিকেট প্রেমি লোকজন উক্ত খেলা উপভোগ করতে ছুটে আসত। আগামীতে এধারা অব্যাহত রাখতে চেষ্টা থাকবে। আর আমাদের ক্লাবের পরিচালক স্যার মাস্টার শফিউল আলমের আন্তরিকতায় ক্লাবের পক্ষ থেকে হতদরিদ্র কর্মহীন ও শ্রমজীবী মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে এটা আমাদের ক্লাবের জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে আশা রাখি।

অত্র ক্লাবের ক্রীড়া সম্পাদক দোলেয়ার হোছাইন সাঈদী এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, প্রতিষ্ঠার পর বছরের দুটি সময় যেন রংধনুর দেখা মিলত কালারমারছড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্টেডিয়ামের মাঠে। বসতো উপজেলার বৃহত্তর ক্রিকেট আসর। লাল, নীল, সবুজ, আকাশি, নীল আরও কত রং! নানা রঙের জার্সি গায়ে ক্রিকেটাররা আসতেন খেলতে। অনেক সময় চেনারও উপায় থাকে না, কে কোন দলের ক্রিকেটার। তবে উক্ত খেলা বিলুপ্ত হলেও আগামীতে উক্ত আসর বসার মাধ্যমে নবদূত যুব উন্নয়ন ক্লাব ঐতিহ্য ধরে রাখবে। আর শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ক্লাবের পরিচালক মাস্টার শফিউল আলম ত্রাণ বিতরণে অংশ গ্রহণ করায় আমি নিজে খুশি।

আপনার মতামত লিখুন :