মহেশখালীতে চলছে ইউপি নির্বাচনী হাওয়া, নৌকার মাঝি হতে চাই অনেকে খবর নেই বিএনপির | ChannelCox.com

Najim UddinNajim Uddin
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪০ PM, ০৮ অক্টোবর ২০২০

এ.এম হোবাইব সজীব,মহেশখালীঃ

আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে প্রথম ধাপের ভোট গ্রহণ মার্চের মাঝামাঝি হতে পারে। এই ঘোষণার সাথে সাথে কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ীতে, বইতে শুরু করেছে ইউনিয় পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া। এ হাওয়া লেগেছে গ্রামের কৃষক শ্রমিক জনতার মাঝে। গ্রাম মহল্লা থেকে শুরু করে চায়ের দোকানে চলছে ভোটার হিসাব নিকাশ।

এবার এ ইউনিয়নের জনগন চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে চুল ছেঁড়া বিশ্লেষণ। যার কারণে এবার চেয়ারম্যান যেই হোক না কেন কঠিন পরীক্ষার সন্মুখীন হতে হবে এ ইউনিয়নে। কারণ এ ইউনিয়নে সরকারের কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ বড় বড় মেগা প্রকল্প হতে যাওয়ায় এটি বর্তমান সরকারের পেষ্টিত ইস্যুর আসন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর তাই যেন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা ভোটের মাঠে প্রকাশ্য ও গোপনে নানাভাবে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হবে এই নির্বাচন।

চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীক নৌকার মাঝি হতে নবীন-প্রবীণ মিলিয়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা নানাভাবে জেলা পর্যায় থেকে শুরু করে উপজেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের কাছে তদবির চালিয়ে গেলেও কোন খবর নেই দেশের অন্যতম প্রধান বিরোধী দল বিএনপি দলের প্রার্থীদের।

তবে বিএনপির সমর্থিত অনেক নেতা দলীয় প্রতীকে নই বিকল্প হিসাবে জয়ের লক্ষে নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করবেন বলে বিশ্বস্থ সূত্রে জানাগেছে।

সম্ভ্যব্য চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ তথা নৌকা প্রতীক চেয়ে ডজন খানেক নবীন-প্রবীণ মিশ্রিত আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতারা বিভিন্নভাবে প্রচারণা এবং তদবির চালিয়ে গেলেও আলোচনায় রয়েছেন হাতেগোনা কয়েকজন। আওয়ামীলীগ থেকে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান এনামুল হক রুহুল, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জি.এম ছমি উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক এস, এম আবু হায়দার, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য মশরফা জান্নাত, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা পরিষদ সদস্য মাস্টার রুহুল আমিন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক সেলিম উল্লাহ সেলিম, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি আবদু সাত্তার।

বিএনপি থেকে রফিকুল ইসলাম ভেন্ডার ও সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম এম,কম। এ ছাড়া সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মোস্তাক আহমদের পুত্র অধ্যাপক সেলিম, নাগরিক কমিটির ব্যানারে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করবেন বাবর চৌধুরী বলে শোনা যাচ্ছে। বলতে গেলে সোনার হরিণ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান অনেকে। তবে শক্তিশালী অবস্থানে আছেন চারজন। তারা হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জি.এম ছমি উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান এনামুল হক রুহুল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম আবু হায়দার।

আওয়ামী লীগ নেতা ও চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে সব সময় তিনি সরকারি এবং জনগণের কাজে নিজেকে নিয়োজিত রাখছেন। তাছাড়া এলাকায় জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বিশাল একটি ভোট ব্যাংক সৃষ্টি করেছেন। তিনি আগামী ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন চাইবেন। এবং নৌকার টিকেট পেলে এবারও তিনি জিতবেন বলে আত্মবিশ্বাসী।

অপরদিকে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম ছমি উদ্দিন বলেন, দলের দুঃসময়ে নেতাকর্মীদের পাশে ছিলেন আশা রাখি দল আমাকে মূল্যায়ন করে নৌকার টিকেট দিলে আমি বিজয় হব।

সাবেক চেয়ারম্যান এনামুল হক রুহুল বলেন, এলাকায় আমার একটা বিশাল ভোট ব্যাংক সৃষ্টি হয়েছে যদি দল থেকে আমাকে এবার নৌকার টিকেট দিলে আমার বিজয় নিশ্চিত।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম আবু হায়দার বলেন, আমি ছাত্র রাজনৈতি থেকে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতারা অবগত রয়েছেন। আমি স্বচ্ছ রাজনৈতি করি বিদায় এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড আমাকে নৌকার মাঝি নির্বাচিত করবেন। নৌকা পেলে আমার বিজয় সুনিশ্চিত। তার পরে ও দেখা যাক কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি।

Channel Cox News.

আপনার মতামত লিখুন :