• মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন
Channel Cox add

বসতভিটা দখলেৱ চেষ্টার অভিযোগে চকৱিয়ায় দুই আ’লীগ নেতাৱ বিরুদ্ধে মামলা | ChannelCox.com

সংবাদদাতা
আপডেট : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০

চকরিয়া প্রতিনিধি:

প্রভাবশালী ও প্রতিপত্তিদের শিকারের যেন অন্ত: নেই, তাদের প্রতাপের কারণে সমাজ আজ দিশেহারা। নির্যাতিত, নিপীড়িত, নিষ্পেষিত অসহায় মানুষ আজ হয়েছে ব্যাকুল। প্রতিনিয়ত অতিবাহিত করছে উৎকণ্ঠা জীবনযাপন। ঠিক তেমনি রাজনৈতিক প্রতাপশালীৱ জোর-জবরদস্তির শিকার হয়েছেন কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার অসহায় এক দিনমজুর।

অসহায়ত্বের নিদারুণ এই দিনমজুরেৱ মাথাগোঁজার একমাত্র সম্বল বসতভিটা কেড়ে নিতে মৱিয়া হায়নাৱ দল। ভাগ্যিস কপালে জুটেছিল পরিবর্তন পুলিশের আন্তরিক মায়া। সেই সুবাদে চকরিয়ায় বসত ভিটা দখলের অভিযোগে স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ দশ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। উপজেলার কাকারা ইউনিয়নেৱ বার আউলিয়া নগরস্থ এলাকার মৃত আবদুর রশিদের পুত্র দিনমজুর ছলিম উল্লাহ ২৩ অক্টোবর বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় মামলাটি দায়ের করেন, যাহা মামলার নাম্বার নং-৩৯/৪৪২। এতে অজ্ঞাত নামা আরো দশ বারোজন এজাহারনামীয় উল্লেখিত রয়েছে।

মামলাৱ অভিযুক্ত আসামীৱা যথাক্রমে, লক্ষ্যারচর ইউনিয়নেৱ মৃত নুরুল আলমেৱ পুত্র আওরঙ্গজেব বুলেট (৪৫), মৃত আব্দুল খালেকেৱ পুত্র আব্দুর রহিম(৩৩), মোঃ আব্দুস ছালামের পুত্র মোঃ ফরিদুল আলম(৩২), মৃত আনোয়ার হোসেনের পুত্র রেজাউল করিম সেলিম(৪৬), মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র মোঃ আরমান(৩০), আফজালের পুত্র মোঃ কামাল (৩৬), মোহাম্মদ আবদুর রশিদের পুত্র মোঃ শাহাবুদ্দিন জান্টু(৩০), মোহাম্মদ হানিফার পুত্র জাফর আলম (৩৫), মৃত আলী মদনের পুত্র মোঃ লিয়াকত(৩০) ও কাকারা ইউনিয়নের শাহ ওমৱসহ নগর এলাকার মৃত আবদুল গনির পুত্র জালাল উদ্দিন(৩০)। তৎমধ্যে রেজাউল করিম সেলিম ও আওরঙ্গজেব বুলেট লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগেৱ সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকেৱ দায়িত্ব পালন করছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ অক্টোবর সকাল এগাৱটার সময় বসত ভিটা দখলসহ ক্ষতিসাধনেৱ উদ্দেশ্যে বুলেট, সেলিম, রহিম, ফরিদ, আরমানের নেতৃত্বে দেশীয় অবৈধ অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হইয়া কাকারা ইউনিয়নেৱ বার আউলিয়া নগরস্থ মৃত আবদুর রশিদের পুত্র দিনমজুর ছলিমেৱ বসত ভিটায় হামলা ও লুটপাট চালায় সংবদ্ধ দখলবাজরা। এ সময় নিরীহ নারী পুরুষের উপর নারকীয় তান্ডব চালায়। এতে আহত হন সেলিমের স্ত্রী, বড় বোন হোসনে আরা বেগম, ভাবি কুলসুমা বেগম ও তার শাশুড়ি মঞ্জুরা বেগম। উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিত থানার এসআই মোঃ আশরাফ হোসেনেৱ তদন্ত সাপেক্ষে মামলাটি এজাহারনামীয় নথিভূক্ত করা হয়।

মামলাৱ বাদী মো. ছলিম উল্লাহ জানান, গত ১৮ অক্টোবর সকাল ১১ টার দিকে লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আওরঙ্গজেব বুলেট সভাপতি রেজাউল করিম সেলিম ও তাদের লাঠিয়াল সন্ত্রাসী বাহিনী দা, কিরিচ, লোহার রড ও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অনধিকার বসতভিটার সীমানার বাঁশের বেড়া ভাংচুর করে বিরাট ক্ষতি স্বাধন করে। তারা জবর দখলের উদ্দেশ্যে বসতভিটা ভাংচুর করার সময় আমার স্ত্রী এসে বাধা দিলে তারা আমার স্ত্রী ও বোন এবং শ্বাশুড় বাড়ির লোকজনকে বেদড়ক মারধর ও অমানবিক নির্যাতন করে। আওরঙ্গজেব বুলেট আমার স্ত্রীর গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন কেড়ে নিয়ে ফেলে। তারা আমাকেও প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। বসতবাড়ির মূল্যবান আসবাবপত্র ভাংচুর করে। তারা আমাদের অমানষিক নির্যাতনকালে আমরা চিৎকার করলে প্রতিবেশী লোকজন এসে তাদের কবল থেকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পৌঁছান। অতিমাত্রায় জখমেৱ কাৱণে কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন কর্তব্যরত ডাক্তার। উপৱোক্ত বিষয়টি অবহিত করণে চকরিয়া থানায় এজাহার দায়ের করি।

উপরোক্ত বিষয়ে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ বলেন, ১৮ অক্টোবর সকাল ১১ টার দিকে কাকাৱা ইউনিয়নেৱ বার আউলিয়া নগর এলাকায় বসত ভিটাৱ জের ধরে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের লোকজন আঘাতপ্রাপ্ত ও ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হন। এতে দুই পক্ষের লোকজন থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের বিষয়টি তদন্তের জন্য এসআই মোঃ আশরাফ হোসেনকে তদন্তভার দেয়া হয়েছিল। সরেজমিন তদন্ত সাপেক্ষে উভয় পক্ষের নিয়মিত আইনে দুইটি মামলা এজহারভুক্ত কৱণে বিজ্ঞ আদালতে রিপোর্ট প্রদান করা হয়েছে।

স্থানীয় সচেতন মহলের দাবী দীর্ঘদিন ধরে ঘাপটি মেরে থাকা সরকারদলীয় নেতৃবৃন্দের নিরীহ নারী-পুরুষের উপর নারকীয় তান্ডব, অত্যাচার, অবিচার ও জবরদখলসহ নানা অপকর্মের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Channel Cox News.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + ten =

আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ