• বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন

কক্সবাজার জেলা জাতীয় ছাত্রসমাজের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

Md. Nazim Uddin
আপডেট : রবিবার, ২৮ মার্চ, ২০২১

সাখাওয়াত হোসাইন:

কক্সবাজার জেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি সুলতান মাহমুদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির ছাত্রসংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। ১৯৮৩ সালের এ দিনে প্রথমে নতুন বাংলা ছাত্র সমাজ নামে এ সংগঠনের যাত্রা শুরু হয়। এতে আহ্বায়ক নিযুক্ত হয়েছিলেন রফিকুল হক হাফিজ। পরে ১৯৮৪ সালে এর পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে তিনি সভাপতি এবং শেখ সিরাজুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক নিযুক্ত হন। সে সময় সংগঠনের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় জাতীয় ছাত্র সমাজ। প্রতিষ্ঠার পর তৎকালীন শাকসগোষ্ঠীর প্রত্যক্ষ ছত্রছায়ায় জাতীয় ছাত্র সমাজ সারাদেশে শক্তিশালী সংগঠনে রূপ নেয়।

এদিকে জাতীয় ছাত্র সমাজের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার বিকাল ৪টায় কক্সবাজার শহরের শহীদ মিনার চত্বরে কেক কাটা হয়।

সুলতান মাহমুদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক ও কক্সবাজার জেলা জাপার দুই বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট তারেক, জাপা কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আমিন সিকদার ভুট্টো, কৃষক পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও কক্সবাজার জেলা কৃষক পার্টির সভাপতি মোশারফ হোসেন দুলাল, জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদিকা ও কক্সবাজার জেলা মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবং কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমাউল হুসনা, জাতীয় ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সদস্য ও কক্সবাজার শহরের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন, শহরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবছার, রামু উপজেলার সভাপতি মাহবুব রহমান, রামু উপজেলার সিনিয়র সহ সভাপতি আবুল আলম, মোহাম্মদ জাবেদ, আসারুল হক লালু, জাবেদ ইসলাম, জাহাদুল ইসলাম ছোটন, ফরহাদ হোসেন, বাবু, এনামুল কবির, বাবু-২, আবির, জমির, মেহেদী হাসান, রিফাত উদ্দিন, সুহান, সেফায়ত ইসলাম, আলী রাজ, মনির, শামসু রহমান, পারভেজ, ওমর ফারুক, হেলাল উদ্দিন

এ সময় জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা বলেন, তরুণরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করবে, পাশাপাশি অসহায় মানুষের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়াবে। আমরা জাতীয় ছাত্র সমাজকে নতুন আঙ্গীকে দেখতে চাই। ছাত্ররা শুধু নিজেদের অধিকারই নয়, দেশ ও জাতীর স্বার্থে আন্দোলন সংগ্রামে নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছে। বর্তমানে ছাত্রদের গৌরবোজ্জল ঐতিহ্য কিছুটা ম্লান হয়েছে।

‘মেধা ও দেশপ্রেম দেখেই আগামী দিনের ছাত্র সমাজের নেতৃত্ব নির্বাচন করতে হবে, যারা ভয়-ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে দেশ, সমাজ ও দলের জন্য অবদান রাখতে পারবে। অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো থেকে সাধারণ মানুষের দৃষ্টি এখন জাতীয় পার্টির দিকে। সাধারণ মানুষ এ দলকে আরও শক্তিশালী দেখতে চায়।

আগামী দিনে জাতীয় পার্টিতেই আস্থা রাখতে চায়। তাই দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণে ছাত্র সমাজই শক্তিশালী করবে জাতীয় পার্টিকে।’

SuperWebTricks Loading...

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − 2 =

আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ
error: Content is protected !!