• শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:০৭ অপরাহ্ন

চকরিয়ায় বসত ভিটার জের ধরে হামলা পর প্রতিপক্ষকে মামলা দিয়ে ফাঁসানোর পায়তারা | সি কক্স নিউজ

সংবাদদাতা
আপডেট : সোমবার, ১১ মে, ২০২০

মোঃ নাজমুল সাঈদ সেহেল,চকরিয়া:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় বসত ভিটার জের ধরে স্কুলছাত্রীসহ পরিবারের সদস্যকে বেদড়ক পিটিয়ে জখম করার পর প্রতিপক্ষকে মামলা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ৪মে বিকেলে উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডস্থ মরংঘোনা পূর্ব পাড়ায় ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বুলু আক্তারের বসতভিটার জায়গা খানা নিকট আত্নীয় মুজিবুর রহমান এর নমীয় চাচা জাহাঙ্গীর আলম(৫০) ও হুমায়ুন কবির(৪৪) উভয় পিতাঃ মৃত আব্বাছ আহমদ হইতে খরিদা চুক্তিমূলে স্বত্ব দখলীয় মালিক হয়। উক্ত জমি খরিদের পর মুজিবুুর রহমানের নির্দেশে উক্ত জায়গায় বসত ঘর করিয়া শান্তপূর্ণভাবে স্ব-পরিবারে বসবাস করিয়া আসিতেছে। পরবর্তীতে চাচা জাহাঙ্গীর আলম ও হুমায়ুন কবির অন্য লোকের জমি বুলু আক্তার গংকে গোপনে বিক্রি করিয়া বিক্রয়কৃত জমির টাকা আত্নসাৎ করে।বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ার পর বিক্রেতাগণ কৌশল অবলম্বন করে জায়গার নমীয় মুজিবুর রহমানকে রেজিষ্ট্রী না দিয়ে জোর পূর্বক বুলু আক্তারের পরিবারকে জোর পূর্বক উচ্ছেদ করার অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে।

তাছাড়া পূর্ব পরিকল্পিত অনুযায়ী গত ৪মে বিকেলে অবৈধ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অনধিকার প্রবেশ করিয়া ক্রেতার বসতঘর ভাংচুর চালায়। এতে বাধা প্রদান করায় অমানুষিক হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করে টাকা, স্বর্ণালংকারসহ বাড়ির মূল্যবান জিনসপত্র লুটপাট করে নিয়ে যায়। এসময় স্কুল পড়ুয়া ছোটবোন নাঈমা জন্নাত এগিয়ে আসলে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে চলে যায়। পাড়াপ্রতিবেশী শোর চিৎকারে এগিয়ে আসার পর আহতদের উদ্ধার চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত ডাক্তার গুরুতর জখম হওয়ায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। উক্ত বিষয়ে বুলু আক্তার বাদী হয়ে ৯মে চকরিয়া থানায় ৯জনকে আসামী করে ২৯৩৩(৩)/১স্মারকমূলে মামলা রুজু করেন।

এবিষয়ে বুলু আক্তারের বোন হাসিনা আক্তার এ প্রতিবেদকের কাছে স্মরণাপন্ন হয়ে জানান, হামলার মূল নেপথ্যকারী জাহাঙ্গীর ঘটনার মোর ঘুরানোর লক্ষে গত ৬ মে আহত হয়েছে মর্মে মেয়ে জয়নব বেগমকে চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেছে উল্লেখিত ভুয়া রুজি বানিয়ে ৯মে পাল্টা বুলু আক্তারের পরিবারেকে আসামী উল্লেখ করে এজাহার দায়ের করেছেন বলে জানান।

তিনি আরো বলেন, প্রকৃত ঘটনা কারা ঘটিয়েছে এলাকাবাসী অবগত। তাছাড়া ঘটনা সংগঠিত হয়েছে ৪মে কিন্তুু প্রতিপক্ষের মামলার এজাহার অনুসারে হাসপাতালে ভর্তি উল্লেখ করা হয়েছে ৬মে। এতে কি প্রতিয়মান হয় না প্রকৃত ঘটনা আড়াল করার জন্য উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে উল্টো মামলা দিয়ে ফাঁসানোর পায়তারা ছাড়া আর কিছু নয়। তাই আইনের সংস্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি বিনীত অনুরোধ তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবী জানাচ্ছি।

উপরোক্ত ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্স (ওসি) হাবিবুর রহমান বলেন, ৮মে বুলু আক্তার বাদী হয়ে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ৯জনকে আসামী করে এজাহার দাখিল করেছে।৯মে এজাহারটি মামলার নথিভুক্ত করে সাব-ইন্সপেক্টর(নিরস্ত্র) মোঃ আব্দুল বাতেনকে মামলার তদন্তভারে দ্বায়িত্ব দেয়া হয়েছে। মামলার তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

Channel Cox News.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + sixteen =

আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ