• বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন

ডুলাহাজারায় যুবলীগ নেতা আদরের নিজ অর্থায়নে রাস্তা মেরামত কাজ শুরু

Md. Nazim Uddin
আপডেট : রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১

এম.মনছুর আলম,চকরিয়া:

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের গ্রামীণ জনপদের বিভিন্ন অভ্যান্তরীণ সড়কে বর্ষায় বৃষ্টির পানি জমে ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হয়। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়ে যান চলাচলসহ হাজার হাজার জনসাধারণ। যাতায়তে এসব সড়ক চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ায় জনগণের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে ব্যক্তিগত উদ্যোগে এসব রাস্তা মেরামত ও সংস্কারে এগিয়ে এসেছে তরুণ যুবনেতা, ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক বিশিষ্ঠ সমাজ সেবক ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাসানুল ইসলাম আদর।

শনিবার (১৭ জুলাই) সকালে ডুলাহাজারা রংমহল এলাকায় যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদর নিজ অর্থায়নে ইট, বালু ও কংকর দিয়ে সড়কের বড় বড় সৃষ্ট গর্তের মেরামত কাজ শুরু করেন।

জানা গেছে, ডুলাহাজারা রংমহল-শাহসূজা সড়কের বেশ কয়েকটি স্থানে ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছিল। চলতি বর্ষায় বৃষ্টির পানিতে ওই গর্তগুলোতে কাদা পানি জমে ছোট ছোট পুকুরের আকার ধারণ করে। প্রায় প্রতিদিনই আটকে থাকে ভারী যানবাহন। রাস্তা দিয়ে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় রংমহল ও পাশ্বোক্ত লামা ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের হাজার হাজার বাসিন্দা ও জনগোষ্ঠীর।

খবর পেয়ে শনিবার ছুটে আসেন যুবলীগ নেতা ও ডুলাহাজারা ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাসানুল ইসলাম আদর। রাস্তার বেহালদশা দেখে তিনি নিজ অর্থায়নে ইট, বালু ও কংকর দিয়ে সড়কটি মেরামত করে পুনরায় চলাচলের উপযোগী করে তুলেছে। ফলে ওই সড়কে চলাচল করা মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, ডুলাহাজারা রংমহল-শাহসূজা সড়ক দিয়ে নিত্যদিন শত শত বিভিন্ন ভারী পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল করে। পাশ্বোক্ত লামা ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষের একমাত্র চলাচলের মাধ্যম এ সড়ক। এছাড়াও ডুলাহাজারা রংমহল এলাকার মানুষের যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে এ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহার করে আসছে।

সড়ক দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচলে ও চলতি বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানি জমে বেশ কয়েকটি স্থানে সড়কে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়। ফলে গর্তে কর্দমাক্ত পানি জমে সড়কটি চলাচলের জন্য অযোগ্য হয়ে পড়ে। কোনো কোনো সময় এই সব বড় বড় গর্তে পড়ে ইজিবাইক, লেগুনা, রিক্সা ও করিমন উল্টে চালকদের শারীরিক ও আর্থিক ক্ষতি হয়। এছাড়াও সড়কে সৃষ্ট গর্তের মধ্যে প্রায়ই মালবাহী যানবাহন আটকা পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ও রংমহলসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তি এবং দুর্ভোগের শিকার হতে হয়।

ওই সড়কের নিয়মিত চলাচলকারী নুরুল আমিন বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই সড়কটি বেহাল অবস্থায় ছিল। বিগত একবছর পূর্বে সড়কটি কার্পেটিং করে মেরামত করা হয়। বছর যেতে না যেতেই সড়কে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে পানি জমে পুকুরে পরিণত হয়েছে। যুবলীগ নেতা আদর এখন গর্তগুলো কিছু ইট, বালু দিয়ে ভরাট করায় সাময়িকভাবে সড়কটি চলাচলের উপযোগী হয়েছে। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবি জানান।

ডুলাহাজারা ইউনিয়ন আ:লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, ভোটের সময় আসলে অনেকেই দেখা মেলে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবত সড়ক যাতায়াতে মানুষের এমন চরম দুর্ভোগে কেউ এগিয়ে আসেনি। এটি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক। প্রতিদিন হাজার হাজার লোক এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করেন। সড়ক দিয়ে চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ায় জনগণের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে যুবলীগ নেতা আদর জনগণের দুর্ভোগ কমাতে সড়কটি মেরামতে এগিয়ে আসার জন্য তাকে ইউনিয়ন আ:লীগের পক্ষথেকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

যুবলীগ নেতা ও ডুলাহাজারা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হাসানুল ইসলাম আদর বলেন, প্রতি বছর এই ইউনিয়ন থেকে সরকারি কোষাগারে কোটি কোটি টাকা রাজস্ব যাচ্ছে। তারপরেও রাস্তা ঘাটের অবস্থা খুবই খারাপ। যে এলাকার জনপ্রতিনিধি দূর্বল সেখানে সড়কের এ বেহাল অবস্থা হওয়া তো স্বাভাবিক। তবে দু:খ একটাই জনগণের এ চলাচলের রাস্তা যদি আমাদের মেরামত করতে হয় তাহলে ভোট দিয়ে এলাকায় অযোগ্য জনপ্রতিনিধি বানানো কি প্রয়োজন। আমি জনগণের দুঃখের কথা চিন্তা করে তাদের দুর্ভোগ লাগবে সড়ক মেরামতে এগিয়ে আসছি।

তিনি বলেন, ডুলাহাজারা জনপদের গ্রামীণ রাস্তায় যে সমস্ত খানা-খন্দক গুলো রয়েছে তা নিজ অর্থায়নে ভরাট করবো ইনশাআল্লাহ। চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সাংসদ আলহাজ্ব জাফর আলমে মহোদয় বলেছেন সব সময় জনগণের পাশে থাকতে। তারই নির্দেশনায় যেখানে জনগণের ভোগান্তি ও সমস্যা দেখা দিবে আমি সেখানে আমার সামর্থ্যানুযায়ী হাজির হবো জনগণের পাশে।

এ বিষয়ে এলজিইডি’র প্রকৌশলী কমল কান্তি পাল বলেন, কেউ যদি নিজ উদ্যোগে স্ব-ইচ্ছায় রাস্তা সংস্কার করে মানুষের দুর্ভোগ কমাতে এগিয়ে আসে, সেক্ষেত্রে আমরা এমন মহৎ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।


আরো বিভন্ন বিভাগের নিউজ