ভারুয়াখালীর চেয়ারম্যানকে হুমকি, মামলা তুলে না নিলে হত্যার হুমকি বাদীর পরিবারকে

Channel Cox.ComChannel Cox.Com
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:০৩ PM, ০৩ এপ্রিল ২০২০

আনোয়ার হোছাইন, ঈদগাঁহ :
কক্সবাজার সদরে ভারুয়াখালীতে খুনের মামলার আসামী কতৃক দিবালোকে বাদী পরিবারকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে বাদী পরিবারের সদস্যরা প্রাণহানির আশংকায় রয়েছে বলে দাবি পরিবারের। বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) বেলা ১২ টার দিকে ভারুয়াখালী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড উল্টাখালীএলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ২০১৭ সালে নৃশংস খুনের শিকার উক্ত এলাকার রমিজ আহমেদের ছেলে মামলার বাদী লুতফুর রহমান ও তার ভাই মিজানুর রহমান জানান, সম্প্রতি তার বাবা রমিজ আহমদের খুনের মামলার আসামীরা জামিনে এসে খুনি তাজুল ইসলাম প্রকাশ তাজুইল্লা ডাকাত-পিতা ছব্বির আহমদ, তার চাচা আবুল কাশেম-পিতা গোলাম কবির সাং-উল্টাখালী মোরা পাড়া, রশিদ নগর এর আশ্রয় ও পরিকল্পনায় মামলা তুলে নিতে তাদের নানা ভাবে হুমকি ধমকি দিতে থাকে। মামলা তুলে না নিলে বাদী, তার ভাইসহ স্বজন ফরিদুল আলম, আবু তাহের, নুরুল আমিন, মনজুর আলমকেও খুন ও তাদের জায়গা দখলের হুমকি দেয়। এরই জেরে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাজুল ও তার চাচা কাশেম প্রকাশ্যে অস্ত্র হাতে মামলার অন্য আসামী বেদার মিয়া, ইউসুফ রানা, নেজামত উদ্দিন ও তাদের পিতা ছব্বির আহমদকে নিয়ে বাদীর বসত ভিটায় এসে মামলা তুলে নিতে হুমকি দেয়। বাদী পরিবারের সদস্যরা প্রতিবাদ করলে খুনি অস্ত্রধারী তাজুল ও তার চাচা কাশেম অস্ত্র হাতে বাদী ও তার ভাই মিজানকে খুন করবে বলে জনসম্মুখে তাদের দিকে তেড়ে যায়। উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অন্য আত্মীয়রা এগিয়ে না আসলে আবারো খুনের শিকার হত বাদী পরিবারের যে কেউ। এ সময় অন্য আসামীদের হাতেও ধারালো অস্ত্র ছিল বলে জানান বাদী পক্ষের লোকজন। এ ঘটনা তখনই নিহতের ছেলে মিজান স্থানীয় মেম্বার ফজলুল হক ও চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শিকদারকে জানান। সত্যতা যাচাইয়ে চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, বাদী পক্ষের মৌখিক অভিযোগ পেয়ে মিমাংসা করে দিতে মামলার আসামী তাজুলকে কল দিলে, সে মোবাইলে উল্টো তাকেও হুমকি স্বরুপ কথা বলেন। চেয়ারম্যান আরো জানান, নিহতের পরিবার খুনের ঘটনার পূর্ব থেকে অধ্যাবধি এ চিহ্নিত খুনি চক্র কতৃক চরম নির্যাতিত হয়ে আসছে। অপরদিকে মামলার বাদী লুতফুর রহমান এবং তার ভাই জানান, তাদের বাবার হত্যা মামলায় আবুল কাশেম আসামী না হলেও খুনিরা জেল থেকে জামিনে আসার পর তার আশ্রয়ে, পরিকল্পনায় এবং সে নিজে প্রকাশ্যে খুনের হুমকি দেয়ার ঘটনায় স্পষ্ট হয়েছে তাদের পিতার খুনের ঘটনা তার ইন্ধনেই হয়েছিল। এ ছাড়া এ খুনি চক্র সম্প্রতি তাদের পূর্ব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে উল্টো বাদী পরিবারের বিরুদ্ধে সাজানো অভিযোগ করে প্রশাসনকে ধোঁকা দিয়ে তাদের মিশন বাস্তবায়নের চক্রান্ত করছে বলেও অভিযোগ তুলেছে নিরাপত্তাহীন পরিবারটি। তাই তারা অবিলম্বে খুনি চক্র ও তাদের ইন্ধন দাতাদের আইনের আওতায় নিতে প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।অভিযোগ উঠা পক্ষের সাথে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের না পাওয়ায় তাদের মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। পরে তাদের মন্তব্য পেলে গুরুত্ব সহকারে ছাপানো হবে। উল্লেখ্য,২০১৭ সালের ১১ আগস্ট বাজার থেকে ফেরার পথে জায়গা দখলে নিতে এ খুনি চক্রের হাতে নৃশংস খুনের শিকার হয় রমিজ আহমদ।এ খুনের ঘটনায় নিহতের ছেলে লুতফুর রহমান বাদী হয়ে চিহ্নিত খুনি চক্রের বিরুদ্ধে রামু থানায় মামলা দায়ের করেন।যার মামলা নং ২৭/২০১৭। অপরদিকে খুনি তাজুল বিরুদ্ধে এছাড়াও ডাকাতিসহ আরো মামলা রয়েছে। যার একটি মামলা নং ২১/২০১৭, মডেল থানা কক্সবাজার।

আপনার মতামত লিখুন :